ঢাকা ২০ এপ্রিল, ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম
পটিয়ায় হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন পটিয়ায় ক্বলবে কুরআন আলো ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে প্রতিযোগিতা ও পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠান পটিয়ায় মুক্তিযোদ্ধাকে বাঁচাতে গিয়ে হামলার শিকার একজন পটিয়া এলডিপির ইফতার মাহফিল সম্পন্ন আনোয়ারায় ভাইয়ের বিরুদ্ধে জোরপূর্বক জায়গা দখলের অভিযোগ আ'লীগ নেতাদের ঈদ উপহার পৌঁছে দিলেন মেয়র আইয়ুব বাবুল উখিয়ায় বিট অফিসার সজল হত্যার ঘটনায় শোক ও প্রতিবাদ সভা ধরা’র নাগরিক অবস্থান "গাছ বাঁচাও প্রকৃতি বাঁচাও " এবং বনকর্মকর্তা সজলের নৃশংস হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে কর্মসূচী রাজনৈতিক সৌহার্দ্যেকে এগিয়ে নিতে যুব স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সাথে এমএএফ কক্সবাজারের সভা পটিয়ায় র‍্যাবের হাতে অস্ত্র কার্তুজ সহ গ্রেফতার শীর্ষ ব্যবসায়ী হামিদ-ধরা ছোয়ার বাইরে গডফাদার সোহেল

যে দেশে রোজা না রাখলেই গ্রেপ্তার

#

১৪ মার্চ, ২০২৪,  3:09 PM

news image

রহমত, মাগফিরাত ও নাজাতের মাস পবিত্র মাহে রমজান। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ পবিত্র এ মাসে রোজা পালন করেন। এমন অবস্থায় সম্ভবত একটি দেশই আছে, সেখানে রোজা না রাখলেই মুসলমানদের গ্রেপ্তার করা হয়। দেশটির নাম নাইজেরিয়া। 

মূলত আফ্রিকার এই দেশটির একটি প্রদেশে রোজার মাসে দিনের বেলা খাবার খেতে দেখার পর তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নাইজেরিয়া ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হলেও এখানকার ১২ প্রদেশে শরিয়া আইন চালু করা হয়। এই ১২ প্রদেশে মোট জনসংখ্যার মধ্যে মুসলিম সম্প্রদায়ের লোকই সংখ্যাগরিষ্ঠ। মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ এসব প্রদেশের মধ্যে একটি হলো কানো। আর এখানকার ইসলামিক পুলিশ ‘হিসবাহ’ নামে পরিচিত এবং প্রতি বছর রমজান মাসে তারা খাবারের দোকান এবং বাজারে তল্লাশি চালিয়ে থাকে।

গত মঙ্গলবার গ্রেপ্তারকৃত ১১ জনের মধ্যে ১০ জন পুরুষ এবং একজন নারী। গ্রেপ্তারের পর তারা আর ইচ্ছাকৃতভাবে রোজা মিস করবে না বলে শপথ করার পর তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

হিসবাহের মুখপাত্র লওয়াল ফাগে বিবিসিকে বলেছেন, আমরা মঙ্গলবার ১১ জনকে পেয়েছিলাম যার মধ্যে একজন নারীও ছিলেন, যিনি চিনাবাদাম বিক্রি করছিলেন এবং তাকে তার জিনিসপত্র থেকে খেতে দেখা গেছে এবং পরে কিছু লোক আমাদের এই বিষয়টি জানায়।

তিনি বলেন, অনুসন্ধান ও তল্লাশি অভিযান অব্যাহত থাকবে। তবে অমুসলিমরা এই অভিযানের আওতার বাইরে।

লওয়াল ফাগে বলছেন, আমরা অমুসলিমদের গ্রেপ্তার করি না। কারণ এটি (রোজা) তাদের পালন করার বিষয় নয়। শুধু একটি অপরাধের জন্য দোষী সাব্যস্ত হলেই আমরা অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করি। আর তা হচ্ছে, যাদের রোজা রাখার কথা, সেসব মুসলমানের কাছে বিক্রি করার জন্য যারা খাবার রান্না করে।

যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছিল তাদের সম্পর্কে ইসলামিক পুলিশের এই মুখপাত্র বলেন, তারা এখন থেকে রোজা রাখা শুরুর প্রতিশ্রুতি দিয়ে মুক্তি পেয়েছে এবং ‘তাদের মধ্যে কারও কারও পরিবার যেন তাদের পর্যবেক্ষণ করে, সে জন্য আমাদের তাদের আত্মীয় বা অভিভাবকদেরও ডাকতে হয়েছিল।

logo

সম্পাদক : হেফাজুল করিম রকিব

নির্বাহী সম্পাদক : শাহ এম রহমান বেলাল