ঢাকা ১৬ জুলাই, ২০২৪
সংবাদ শিরোনাম
আজ দুপুরে রাজু ভাস্কর্যে বিক্ষোভ সমাবেশ করবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন কোটা ইস্যু নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন এখন কার রাজাকারদের পরিণতি হবে ওই যুগের মতোই আরাকান আর্মি ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে সংঘাত অব্যাহত গুলির শব্দে কেঁপে উঠল টেকনাফ সীমান্ত আজ থেকে একাদশে চূড়ান্ত ভর্তি শুরু,যা চলবে ২৫ জুলাই পর্যন্ত যারা নিজেদের রাজাকার বলে, তাদের কপালে পতাকা বাঁধার অধিকার নেই বললেন ডা. দীপু মনি জমজম হাসপাতাল পিএলসি বোর্ড সভায় নতুন চেয়ারম্যান,এমডি ও পরিচালক (অর্থ) নির্বাচিত চিত্রনায়িকা পরীমণি শাকিবখানকে ‘ফজলি আম আর রাজকে ‘করলা’র সঙ্গে তুলনা করেছেন হাসপাতাল ছেড়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হাসপাতাল ছেড়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেখে কিডনি বিক্রি, বিপাকে অটোচালক

#

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

০৯ জুলাই, ২০২৪,  6:34 PM

news image
ছবি: সংগৃহীত

চালক বাবা সন্তানের ভবিষ্যত নিশ্চিতের জন্য ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেখে নিজের কিডনি বিক্রি করলেন ঋণে জর্জরিত অটোরিকশা  চালক। এর বিনিময়ে ৩০ লাখ রুপি দেওয়ার কথা থাকলেও প্রতারকরা তা দেয়নি। ফলে আরও বিপাকে পড়েছেন সেই বাবা। ভারতের অন্ধ্র প্রদেশে ঘটেছে এই ঘটনা।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়, ৩১ বছর বয়সী ওই অটোচালকের নাম মধুবাবু গারলাপতি। ফেসবুকে কিডনি বিক্রির লোভনীয় এক বিজ্ঞাপন দেখেছিলেন তিনি। সেখান যোগাযোগ করতে গিয়েই অবৈধ অঙ্গ পাচারকারী এক চক্রের খপ্পড়ে পড়েন তিনি। বিভিন্ন প্রলোভনে তাকে কিডনি বিক্রি করতে বাধ্য করে ওই চক্রের সদস্যরা।

অনলাইন লোন অ্যাপগুলো থেকে ঋণ নিয়ে তখন বিপাকে ছিল মধুবাবু। তাই এই প্রস্তাব তার কাছে আশার আলো হয়ে এসেছিল। ৩০ লাখ রুপি পাওয়ার আশায় নিজের কিডনি দিয়ে দিতে রাজি হন তিনি।

মধুবাবু পরিচয় হয় বাসা নামের কে এজেন্টের সঙ্গে এক নারীও ছিল সেই চক্রে। তিনি জানান, যে তিনি নিজেও কিডনি বিক্রি করেছেন এবং সময়মতো টাকা পেয়েছেন।

এরপর বিজযা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে তার অস্ত্রোপচার হয় এবং কিডনি নেওয়া হয়। সেসময় তার পরিবারও ছিল। সবাইকে যাওয়া আসার খরচও দেওয়া হয় এবং আশ্বস্ত করা হয় যে বাকি টাকা অপারেশনের পর দেওয়া হবে।

কিন্তু সবমিলে ৫০ হাজার টাকা পেয়েছেন মধুবাবু। তিনি বলেন, `আমার অর্থনৈতিক দুর্বলতার সুযোগ নিয়েছে তারা। তারা আমাকে বিশ্বাস করতে বাধ্য করেছে যে আমি একজন বিপদগ্রস্তকে সাহায্য করছি। তিনিও আমাকে সাহায্য করবেন।

মধুবাবু বলেন, ‘আমি রাজি হয়েছি কারণ আমার মনে হয়েছে এতে করে আমি ঋণশোধ করতে পারবো এবং আমার সন্তানদের ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে পারবো।’

logo

সম্পাদক : হেফাজুল করিম রকিব

নির্বাহী সম্পাদক : শাহ এম রহমান বেলাল